ব্লগিং

ফ্রিল্যান্সিং কি এবং এর কাজ সমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন

 ফ্রিল্যান্সিং আজ অনলাইনে অর্থ উপার্জনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপায়। এটি ব্যবহার করে, একজন ব্যক্তি তার নিজের বাড়িতে কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারে। এবং আমি আপনাকে এমন অনেক লোকের উদাহরণ দিতে পারি। যারা মূলত ফ্রিল্যান্সিং করে নিজেদের সফল ক্যারিয়ার গড়তে পেরেছেন।

মূলত ফ্রিল্যান্সিং কি (Freelancing in Bangla), ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ এবং ইনকাম করার উপায় গুলো নিয়ে আজকে স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করবো। তাই ফ্রিল্যান্সিং এর শুরু থেকে শেষ জানতে চাইলে আজকের পুরো লেখাটি মন দিয়ে পড়ার চেষ্টা করুন।

ফ্রিল্যান্সিং কি ?

আপনি যদি  ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করে আয় করেন তবে সেই অর্থ উপার্জনের পুরো প্রক্রিয়াটিকে ফ্রিল্যান্সিং বলা হবে। এই ধরনের কাজকে অনলাইন জব বা ফ্রিলান্সিং বা আউটসোর্সিং বলে।

আরও ক্লিয়ার করতে গেলে কিছু কাজ আছে যা আমরা অফলাইনে বা অফিসে গিয়ে করে থাকি এবং বিনিময়ে মাস শেষে টাকা পাই। কিন্তু ফ্রিলান্সিং এর ক্ষেত্রে এটা ব্যতিক্রম। এখানে আপনার বাধা ধরা কোনো নিয়ম নেই যে কাজটি করতেই হবে। আপনার ইচ্ছা হলে কাজ করবেন তবে আর্নিং হবে পক্ষান্তরে ইচ্ছা না হলে কাজ করবেন না এতে করে আর্নিং ও হবে না। 

আশাকরি উপরোক্ত আলোচনা থেকে ফ্রিলান্সিং কি এবং ফ্রিল্যান্সিং বলতে কি বুঝায় এ সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন। অনলাইন প্ল্যাটফর্মে আজ অনেক ধরনের কোম্পানি রয়েছে। যেসব কোম্পানি আপনি ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করতে পারবেন। আর এই কাজগুলো আপনাকে বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস থেকে খুঁজে বের করতে হবে।

আপনি যখন এটি করবেন তখন আপনি সেই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলি থেকে অর্থ উপার্জন করবেন। তাহলে এই টাকা আয়ের পুরো পদ্ধতিকে এক কথায় ফ্রিল্যান্সিং বলা হবে।

ফ্রিল্যান্সার কে বা কারা ? 

উপরের আলোচনা থেকে ফ্রিল্যান্সিং কি এই বিষয়ে  স্পষ্ট ধারণা পেয়েছেন। তাই এবার আপনার মনে আরেকটি প্রশ্ন জাগবে। অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সার কাকে বলে? তো চলুন জেনে নেওয়া যাক ফ্রিল্যান্সার কারা।

আপনি যখন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলিতে প্রবেশ করবেন তখন দুটি মাধ্যম দেখতে পারেন- এক হল ক্রেতা/ক্লায়েন্ট যারা এই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করে। আর আরেকটি মাধ্যম হলো ফ্রিল্যান্সাররা, যারা সেই ক্রেতার দেওয়া কাজ করে।

তাই সেই দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা যাবে আপনি যখন বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং জব করবেন তখন ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করুন। তাহলে আপনাকে ফ্রিল্যান্সার বলা হবে। আর এখন যত মানুষ ফ্রিল্যান্সিং জব করে টাকা ইনকাম করতে চায়। তাদের সবাইকে ফ্রিল্যান্সার বলা হয়।

See also  লালসালু উপন্যাসের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

ফ্রিল্যান্সিং কত প্রকার? | Kind Of Freelancing

বর্তমান সময়ে আপনি মোট ২ ধরনের ফ্রিল্যান্সিং এর প্রকারভেদ দেখতে পারবেন। যেমনঃ

  1. Part Time Freelancing এবং
  2. Full Time Freelancing

হুমমম, আপনি যদি একান্তভাবে জানতে চান যে, ফ্রিল্যান্সিং কত প্রকার ও কি কি। তাহলে আপনি এই ২ প্রকারের ফ্রিল্যান্সিং দেখতে পারবেন। চলুন এ নিয়ে একটু বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

পার্ট টাইম ফ্রিল্যান্সিং

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন, যারা বিভিন্ন কাজের পাশাপাশি অবসর সময় ফ্রিল্যান্সিং করে থাকে। যেমন ধরুন, আপনি কোনো একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। এখন আপনি চাচ্ছেন আপনার অবসর সময় গুলো তে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কাজ করবেন। এবং বাড়তি কিছু টাকা ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করবেন। তো এই ধরনের ফ্রিল্যান্সিং থেকে ইনকাম করার পদ্ধতি কে বলা হয়, Part Time Freelancing.

ফুল টাইম ফ্রিল্যান্সিং

যদি আপনি বাড়তি কোনো কাজ না করবেন না। আর আপনার পুরো সময়টা যখন ফ্রিল্যান্সিং এর পেছনে ব্যয় করবেন। তখন তাকে বলা হবে, Full Time Freelancing. মূলত আজকের দিনে বেশিরভাগ মানুষ ই ফ্রিল্যান্সিং কে ফুল টাইম জব হিসেবে নির্বাচন করে থাকে। কেননা, বর্তমান সময়ে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় এর পরিমান একটি সরকারি চাকরির বেতনকেও ছাড়িয়ে যাবে।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

আর্টিকেলের শুরু থেকে আমি একটা কথা বারবার উল্লেখ করেছি। সেটি হলো, আপনি নিজের ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং জব করে টাকা আয় করতে পারবেন৷ তো এই বিষয়টি জানার পর আপনার মনে আরো একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে। সেটি হলো, ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়। তো চলুন এবার জেনে নেয়া যাক। আসলে ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়।

তো আপনি যদি নিয়মিত Freelancing Marketplace গুলো তে একটিভ থাকেন। তাহলে আপনি বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কাজ দেখতে পারবেন। চলুন এবার সেই জব গুলো সম্পর্কে জেনে নেযা যাক।

০১| লেখালেখি জব | Writing Jobs

যদি আপনার মধ্যে লেখালেখি করার মতো দক্ষতা থাকে। তবে এই দক্ষতা কে কাজে লাগিয়ে আপনি বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং জব করতে পারবেন। যেমন,

  1. আর্টিকেল রাইটিং (Article Writer)
  2. ব্লগ রাইটার (Blog Writer)
  3. ই-বুক রাইটার (E-book Writer)
  4. ফিকশন রাইটার (Fiction Writer)
  5. কপিরাইটার (Copywriter)
  6. প্রুফরিডার (Proofreader)
  7. ঘোষ্ট রাইটার (Ghost Writer)
  8. প্রোডাক্ট ডিসস্ক্রিপশন রাইটার (Product Description Writer)
  9. ট্রান্সস্ক্রিপশন রাইটার (Transcription Writer)
  10. টেকনিক্যাল রাইটার (Technical Writer)
See also  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়ার সহজ উপায়

লেখালেখি করার দক্ষতার মূল্য আগে যেমন ছিলো এখনও তেমনটি আছে। আর যদি আপনার মধ্যে এই দক্ষতা থাকে। তাহলে আপনি উপরের ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ গুলো করতে পারবেন।

০২| গ্রাফিক্স ডিজাইন জব | Graphic Design Job

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ গুলোর মধ্যে অধিক জনপ্রিয় একটা কাজ হলো, Graphic Design. আর আপনার মধ্যে যদি ভালো ডিজাইন শৈলি থাকে। তবে আপনি বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে পারবেন। যেমন,

  1. লোগো ডিজাইন (Logo Design)
  2. ফটো এডিটিং (Photo Editing)
  3. মোকআপ ডিজাইনার (Mockup Designer)
  4. ফটো রিটার্চিং (Photo Retouching)
  5. পোষ্টার ডিজাইনার (Poster Designer)
  6. আইকন ডিজাইনার (Icon Designer)
  7. টি-শার্ট ডিজাইনার (T-Shirt Designer)
  8. ইনফোগ্রাফিক ডিজাইনার (Infographic Designer)
  9. ভেক্টর ডিজাইনার (Vector Designer)
  10. ফ্লেয়ার ডিজাইনার (Flyer Designer)

বলে রাখা ভালো যে, গ্রাফিক ডিজাইন হলো বৃহৎ একটা প্লাটফর্ম। যাকে কেন্দ্র করে অনেক ছোট ছোট সেক্টর আছে। যেগুলো আজকের দিনে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ হিসেবে অনেক বেশি জনপ্রিয়।

০৩| ওয়েব ডেভলপমেন্ট জব | Web Development Job

উন্নত প্রযুক্তির সাথে তাল মেলানোর জন্য বিভিন্ন কাজে এখন ওয়েবসাইট ব্যবহার করা হয়। আর এই ওয়েবসাইট গুলোকে ডিজাইন এবং ডেভলপ করতে প্রয়োজন হয় দক্ষ জনবলের। এখন আপনি যদি Web Development এ দক্ষ হয়ে থাকেন। তবে আপনি বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করতে পারবেন। যেমন,

  1. ফ্রন্ট ইন্ড ডিজাইনার (Front-End Designer)
  2. ব্যাক ইন্ড ডিজাইনার (Front-End Designer)
  3. ইউএক্স ডিজাইনার (UX Designer)
  4. ইউআই ডিজাইনার (UI Designer)
  5. প্লাগইন ডেভলপার (Plugin Developer)
  6. ওয়ার্ডপ্রেস এক্সপার্ট (WordPress Expert)
  7. ওয়েব ফন্ট ডিজাইনার (Web Font Designer)
  8. বাগ ফিক্সিং (Bug Fixing)
  9. ওয়েবসাইট বিল্ডার (Website Builder)

তো একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার এবং ডেভলপার হতে পারলে। আপনি উপরের কাজ গুলো করে হিউজ পরিমান টাকা ফ্রিল্যান্সিং থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

০৪| অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট জব | App Development Job

বর্তমান সময়ে যেমন এন্ড্রয়েড ইউজার এর সংখ্যা বেড়ে গেছে৷ ঠিক তেমনি ভাবে বেড়েছে Android Apps এর ব্যবহার। তো আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ হিসেবে বিভিন্ন ধরনের App Development Job করতে পারবেন। যেমন,

  1. অ্যাপ ইউআই ডিজাইনার (App UI Designer)
  2. অ্যাপ ডেভলপার (App Developer)
  3. গেম ডেভলপার (Game Developer)
See also  ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি

তবে আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ হিসেবে অ্যাপ ডেভলপমেন্ট করতে চান। তাহলে আপনার ভেতরে অবশ্যই কোডিং দক্ষতা থাকতে হবে৷ তাহলে আপনি এই ফ্রিল্যান্সিং কাজটি করে ফ্রিল্যান্সিং থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং করে যে কাজে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন?

উপরের স্বল্প আলোচনা থেকে আপনি ফ্রিল্যান্সিং কি এবং ফ্রিল্যান্সিং কেন করব। সে নিয়ে পূর্নাঙ্গ ধারনা পেয়ে গেছেন৷ এর পাশাপাশি বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ কি কি। সেগুলো নিয়েও পরিস্কার ধারনা পেয়ে গেছেন। তো এবার আপনার মনে প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে যে, ফ্রিল্যান্সিং করে যে কাজে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

আসলে ফ্রিল্যান্সিং এর যতগুলো কাজ আছে। সেগুলোর প্রায় বেশিরভাগ Freelancing Job গুলো অধিক ডিমান্ডেবল। তবে জানার জন্য এবার আমি আপনাকে এমন সব ফ্রিল্যান্সিং এর কাজের সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো। যে কাজ গুলো করে আপনিও অন্যদের মতো অধিক পরিমান টাকা ফ্রিল্যান্সিং থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। যেমন,

  1. গ্রাফিক ডিজাইন
  2. কপিরাইটার
  3. ওয়েব ডিজাইন
  4. ওয়েব ডেভেলপমেন্ট
  5. সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটার
  6. অনুবাদক
  7. অডিও/ভিডিও সম্পাদক
  8. অ্যাকাউন্টিং
  9. ভিডিও প্রযোজনা
  10. অনলাইন টিউটর

তো আপনি যদি উপরোক্ত ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ গুলোতে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন। তবে আপনিও প্রচুর পরিমান টাকা ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করতে পারবেন।

অল্প কিছুদিনের মধ্যে আমাদের IT Janbo ব্লগ এর পক্ষ থেকে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স পাবলিশ করা হবে। যেখানে আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং এর অদ্যপান্ত বিষয়ে বুঝিয়ে দেয়া হবে। তো যদি আপনি সেই ফ্রী কোর্সটি পেতে চানতাহলে নিচের কমেন্টে আপনার Gmail id টি বসিয়ে দিন।

আশাকরি উক্ত পোষ্ট আপনি ফ্রিল্যান্সিং কি এবং এর কাজ সমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন নিয়ে পড়ে আপনি এখন এ সম্পর্কে সঠিক অবগত আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button