উচ্চ মাধ্যমিক

মানব কল্যাণ প্রবন্ধ সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর ২০২২

আপনি যদি ইতিমধ্যে অনুসন্ধান করে থাকেন মানব কল্যাণ প্রবন্ধ সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর ২০২২ নিয়ে তবে সঠিক জায়গায় এসেছেন। এই প্রবন্ধের প্রশ্নের উত্তর গুলো পাশাপাশি দেওয়া হয়েছে আপনাদের পড়ার সুবিধার্থে। আপনাদের সিলেবাসের উপর ভিত্তি করে পাঠ্য সম্পর্কিত আরো প্রশ্নোত্তর ও আমাদের সাইটে খুঁজে পাবেন। চলুন শুরু করা যাক।

মানব কল্যাণ প্রবন্ধ সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন নম্বর ১

ভেলরি টেইলর, বাংলাদেশের অন্য রকম বন্ধু ৭২ বছর বয়সী ভেলরি কর্মজীবনে লাভ করেছেন অনেক স্বীকৃতিসহ সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি। স্বেচ্ছাসেবা এবং সম্পূর্ণ আপন প্রচেষ্টায় সিআরপি প্রতিষ্ঠা করে তিনি বিশ্বে এক বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনাসহ বিভিন্ন কারণে পঙ্গুত্বের শিকার হাজার হাজার মানুষকে স্বাভাবিক কর্মজীবনে ফিরিয়ে আনতে তার গড়া সিআরপি নজিরবিহীন ভূমিকা পালন করছে। চিরকুমারী ভেলরির জন্ম ব্রিটেনে হলেও তার সব কিছুই যেন বাংলাদেশ। মানবতার সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করে জীবনের বাকি সময়টা থেকে যান এই বাংলাদেশেই। প্রতিবন্ধী, পক্ষাঘাতগ্রস্ত মানুষের কল্যাণে প্রতিষ্ঠা করেছেন হাসপাতাল, পুনর্বাসন কেন্দ্র ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

ক. সত্যিকার মানবকল্যাণ কিসের ফসল?

খ. আমরা কোন উত্তরাধিকারকে জীবনে প্রয়ােগ করতে পারিনি? ব্যাখ্যা কর।

গ. উদ্দীপকটি মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধের সঙ্গে কোন দিক থেকে সাদৃশ্যপূর্ণ? ব্যাখ্যা কর।

ঘ. উদ্দীপকের ভেলরি টেইলরের কর্মকাণ্ড এবং মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধের লেখকের প্রত্যাশা একসূত্রে গাঁথা।”- মন্তব্যটির যথার্থতা যাচাই কর।

উপরোক্ত তথ্য অনুযায়ী মানব কল্যাণ প্রবন্ধ সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর সম্পর্কিত এই আর্টিকেলে এই প্রবন্ধের সৃজনশীল প্রশ্নগুলো কেমন হতে পারে তা আপনি দেখে নিয়েছেন। চলুন এবার তবে প্রশ্নের উত্তর গুলোও দেখে নেওয়া যাক।

পাশাপাশি আরও পড়তে পারেনঃ

প্রতিদান কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

তাহারেই পড়ে মনে কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

আঠারাে বছর বয়স কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

নূরলদীনের কথা মনে পড়ে যায় কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন নম্বর ১ এর উত্তর সমূহ

ক উত্তরঃ সত্যিকার মানবকল্যাণ মহৎ চিন্তা-ভাবনার ফসল।

খ উত্তরঃ আমরা মহৎ প্রতিভাবান ব্যক্তিদের মানবিক চিন্তা ও আদর্শের উত্তরাধিকারকে জীবনে প্রয়ােগ করতে পারিনি। মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে লেখক মানবকল্যাণ বলতে আমাদের প্রতিদিনের ব্যবহারিক জীবনের কল্যাণকে বুঝিয়েছেন।

মনুষ্যত্ববােধে আঘাত লাগে, মানব-মর্যাদা ক্ষুন্ন হয় এমন কোনাে কাজকে তিনি মানবকল্যাণ মনে করেননি। কাউকে দান করা বা এক মুষ্টি ভিক্ষা দেওয়াকেও তিনি মানবকল্যাণ হিসেবে ধরেননি। কারণ তাতে একজনকে করুণা করা হয়, প্রকৃত মানবকল্যাণ সাধিত হয় না।

এজন্য তিনি মানুষকে আত্মস্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে মানুষের বৃহত্তর কল্যাণে এগিয়ে আসতে বলেছেন। মহৎ প্রতিভাবান ব্যক্তিরা আত্মস্বার্থের কথা ভুলে গিয়ে মানবতার আদর্শ নিয়ে কাজ করেছেন। তাদের মানবিক চিন্তা ও আদর্শ সত্যিকারের মানবকল্যাণ সাধনের জন্য যথার্থ । অথচ আমরা তা ধারণ বা অনুসরণ করতে পারিনি।

See also  আমার পথ প্রবন্ধের মূলভাব ব্যাখ্যা সহ জেনে নিন

সারকথা : মানুষের মহৎ চিন্তা-ভাবনার মূল কথা হচ্ছে মানবতা, যা মহৎ প্রতিভাবান ব্যক্তিদের মধ্যে ছিল। অথচ আমরা তা জীবনে প্রয়ােগ করতে পারিনি।

গ উত্তরঃ উদ্দীপকটি ‘মানব-কল্যাণ প্রবন্ধের”সত্যিকারের মানবসেবার আলােচনার দিক থেকে সাদৃশ্যপূর্ণ। আত্মস্বার্থে মগ্ন না থেকে নিজেকে পরােপকারে উৎসর্গ করার মধ্যেই জীবনের সার্থকতা নির্ভর করে। সংকীর্ণ স্বার্থে নিজেকে আবদ্ধ রাখলে জীবন ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়।

উদ্দীপকে ভেলরি টেইলরের বাংলাদেশে সিআরপি প্রতিষ্ঠা করে মানবসেবায় আত্মনিয়ােগের বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে। তিনি এদেশে প্রতিবন্ধী ও পক্ষাঘাতগ্রস্ত মানুষের কল্যাণে হাসপাতাল, পুনর্বাসন কেন্দ্র ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছেন।

বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনাসহ বিভিন্ন কারণে পঙ্গুত্বের শিকার হাজার হাজার মানুষকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে তার গড়া সিআরপি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। ভেলরি টেইলরের মানবসেবার এই মহৎ উদ্যোগ ও কর্মকাণ্ড মানব-কল্যাণ প্রবন্ধের সত্যিকারের মানবসেবার বিষয়টির সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ।

এ প্রবন্ধে লেখক মানুষকে স্বার্থ ত্যাগ করে মানুষের বৃহত্তর কল্যাণে এগিয়ে আসার আহ্বান করেছেন। এর সঙ্গে উদ্দীপকের ভেলরি টেইলরের সেবাধর্মী কর্মকাণ্ডের মিল রয়েছে।

সারকথা : আত্মস্বার্থের কথা ভুলে গিয়ে মানবসেবায় আত্মনিয়ােগের যে কথা লেখক এ প্রবন্ধে বলেছেন তার সঙ্গে উদ্দীপকের ভেলরি টেইলরের মানবসেবার মিল রয়েছে। 

হুবুহু সৃজনশীল প্রশ্ন খবুই কম কমন পড়তে দেখা যায় । তাই এই পোষ্ট মানব কল্যাণ প্রবন্ধের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর ২০২২ এর পাশাপাশি মূল বই থেকে এ সম্পর্কিত আরও বিষয়বলী গুলো ও ধারণা রাখুন। এতে করে যেভাবেই প্রশ্ন আসুক না কেনো আপনি যাতে উত্তর করতে পারেন। চলুন বাকী অংশ পড়ে নেওয়া যাক।

ঘ উত্তরঃ “উদ্দীপকের ভেলরি টেইলরের কর্মকাণ্ড এবং মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধের লেখকের প্রত্যাশা একসূত্রে গাঁথা।”- মন্তব্যটি যথার্থ ।

যুগে যুগে মহৎ ব্যক্তিরা নিঃস্বার্থভাবে পরােপকার করে পৃথিবীতে মানবসেবার অসাধারণ দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন। আমরা যদি তাদেরকে অনুসরণ করে মানবসেবায় আত্মনিয়ােগ করি, তাহলে জগতে যথার্থ মানবকল্যাণ সাধিত হবে।

উদ্দীপকে ৭২ বছর বয়সী ভেলরি টেইলরের বাংলাদেশে মানবসেবায় আত্মনিয়ােগ করার বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে। তিনি বাংলাদেশে সিআরপি স্থাপন করে মানবসেবায় এগিয়ে এসে বিশ্বে এক বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

মানবকল্যাণে আত্মনিয়ােগের ক্ষেত্রে তার মহৎ কর্মপ্রচেষ্টার বিষয়টি মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধের লেখকের প্রত্যাশার সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ। এ প্রবন্ধে লেখক সবাইকে মানবসেবায় এগিয়ে আসতে বলেছেন।

ধর্ম-বর্ণ-জাতির দোহাই দিয়ে বিভক্তিকরণ নীতি গ্রহণ না করে তিনি মানুষকে মানবিক হয়ে মানবসেবায় আত্মনিয়ােগ করতে বলেছেন। এই চেতনা উদ্দীপকে প্রতিফলিত হয়েছে। ‘মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে লেখক মানুষকে নিঃস্বার্থভাবে মানবসেবায় এগিয়ে আসতে বলেছেন।

উদ্দীপকের ভেলরি টেইলরের কর্মকাণ্ডে তার প্রতিফলন ঘটেছে। প্রতিবন্ধী ও পক্ষাঘাতগ্রস্ত মানুষের কল্যাণে তিনি এদেশে হাসপাতাল, পুনর্বাসন কেন্দ্র স্থাপন করেছেন। মানবকল্যাণে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। এসব দিক বিচারে তাই বলা যায় যে, প্রশ্নোক্ত মন্তব্যটি যথার্থ।

সারকথা : মানবকল্যাণ মানুষের শুভ ও কল্যাণকর চিন্তার প্রতিফলন, এটি জাগতিক মানবধর্ম। উদ্দীপকের ভেলরি টেইলর এবং মানব কল্যাণ’ প্রবন্ধের লেখক উভয়ই মানবের কল্যাণ প্রত্যাশা করেছেন। এ দিক থেকে তাদের প্রত্যাশা একসূত্রে গাঁথা।

See also  অপরিচিতা গল্পের নামকরণের সার্থকতা কি তা জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আপনি ইতিমধ্যে আমাদের সাইটের মাধ্যমে মানব কল্যাণ প্রবন্ধ সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর  ১টি পূর্ণাঙ্গ সম্পন্ন করেছেন। চলুন এ সম্পর্কিত আরও একটি দেখে নেওয়া যাক।

পাশাপাশি আরও পড়তে পারেনঃ

প্রতিদান কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

তাহারেই পড়ে মনে কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

আঠারাে বছর বয়স কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

নূরলদীনের কথা মনে পড়ে যায় কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

মানব কল্যাণ প্রবন্ধের সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর

সত্যিকারের মানবকল্যাণের বৈশিষ্ট্য অনুধাবন-এর আলােকে প্রণীত। আমার এ ঘর ভাঙিয়াছে যেবা আমি বাঁধি তার ঘর, আপন করিতে কাঁদিয়া বেড়াই যে মােরে করেছে পর।

ক. চলতি কথায় মানবকল্যাণ কী অর্থে ব্যবহৃত হয়? 

খ. “সত্যিকার ‘মানব-কল্যাণ’ মহৎ চিন্তা-ভাবনারই ফসল।”- ব্যাখ্যা কর।

গ. উদ্দীপকটি মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধের সঙ্গে কীভাবে সাদৃশ্যপূর্ণ? ব্যাখ্যা কর।

ঘ. উদ্দীপকের মূলভাব ‘মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে আলােচিত প্রকৃত মানবকল্যাণকেই নির্দেশ করে।” মন্তব্যটির যথার্থতা ব্যাখ্যা কর। 

পাঠক সাহেব আপনি ইতিমধ্যে উপরোক্ত তথ্য অনুযায়ী মানব কল্যাণ প্রবন্ধের সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর ২০২২ সম্পর্কিত আর্টিকেলে ২য় তম সৃজনশীল প্রশ্নগুলোর নমনুা কেমন হতে পারে তা দেখে নিয়েছেন। চলুন এবার তবে প্রশ্নের উত্তর গুলোও দেখে নেওয়া যাক।

সৃজনশীল প্রশ্ন নম্বর ২ এর উত্তর সমূহ

ক উত্তরঃ চলতি কথায় মানবকল্যাণ সস্তা ও মামুলি অর্থে ব্যবহৃত হয়।

খ উত্তরঃ “সত্যিকার ‘মানব-কল্যাণ’ মহৎ চিন্তা-ভাবনারই ফসল।”- কারণ মানুষের মহৎ ও কল্যাণকর চিন্তা-ভাবনার মধ্যে মানবকল্যাণের মূল কথা নিহিত।

মানব-কল্যাণ প্রবন্ধে লেখক সত্যিকার অর্থে মানবকল্যাণ কী এবং এটি কীভাবে সাধিত হয় তা ব্যাখ্যা করেছেন। মনুষ্যত্ববােধে আঘাত লাগে এবং মানব-মর্যাদা ক্ষুন্ন হয় এমন কোনাে কাজকে তিনি মানবকল্যাণ মনে করেননি। তিনি মানুষের প্রতি যথাযথ মর্যাদার মাধ্যমে হিত সাধন করাকে মানবকল্যাণ মনে করেছেন।

তিনি মানুষকে বিভক্তিকরণের মনােভাবে বিশ্বাসী নন। তিনি মুক্ত বুদ্ধির মাধ্যমে মানবিক কাজ করাকে মানবকল্যাণ মনে করেন। এসব বিবেচনা করে তাই বলা হয়েছে যে, “সত্যিকারের মানব-কল্যাণ’ মহৎ চিন্তা-ভাবনারই ফসল।”

সারকথা : মানবতাবােধ না থাকলে মানবকল্যাণ করা যায় না। মানবতাবােধই হচ্ছে মানুষের মহৎ চিন্তা-ভাবনার মূল কথা। 

গ উত্তরঃ উদ্দীপকটি মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে আলােচিত সত্যিকারের মানবকল্যাণের বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ। মানুষকে ভালােবাসার মধ্যে মানবজীবনের সার্থকতা প্রকাশ পায়। মানবজীবনের বাইরে মানুষের করণীয় অন্য কিছুই নেই।

তাই মানুষকে তার জীবনের সময়টুকুর মধ্যে ভালাে কাজ করতে হয়। কারণ মানুষের জীবনের সঙ্গে জীবনের যােগ না হলে জীবন সার্থক হয় না। উদ্দীপকের কবিতাংশে নিঃস্বার্থ পরােপকারী মনােভাব স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। নিজের ক্ষতি সত্ত্বেও কবি অন্যের প্রতি গভীর সহানুভূতিশীল।

তাঁকে যে আঘাত দেয়, তার জন্য তিনি সমব্যথী হন। যে তাঁকে পর করে তিনি তাকে আপন করার জন্য ব্যাকুল হয়ে ঘুরে বেড়ান। এ বিষয়গুলাে কবির মহৎ চিন্তা ও মানবতাবােধেরই প্রতিফলন। এসব বিষয় ‘মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে প্রতিফলিত সত্যিকারের মানবকল্যাণের বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

See also  মাসি পিসি গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

লেখক এ প্রবন্ধে মানুষের মহৎ চিন্তা-ভাবনা এবং মানুষের আত্মমর্যাদা ক্ষুন্ন না করে মানুষের কল্যাণ সাধন করার কথা বলেছেন। তাঁর মতে মানবকল্যাণ সর্বজনীন, মহৎ কর্ম। তাই বলা যায়, প্রবন্ধে আলােচিত সত্যিকার মানবকল্যাণের বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে উদ্দীপকের ভাব সাদৃশ্যপূর্ণ।

সারকথা : সত্যিকারের মানবকল্যাণ নিঃস্বার্থ পরােপকারের মধ্যে নিহিত থাকে। উদ্দীপক ও ‘মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে এ বিষয়টি অভিন্নভাবে অ প্রতিফলিত হয়েছে।

আপনি এই পোষ্টে মানব কল্যাণ প্রবন্ধের সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর  নিয়ে পড়তেছেন। এটি পূর্ণাঙ্গ পড়া শেষে আপনি এ সম্পর্কিত আরও পাঠ্য আমাদের সাইটে খুঁজে পাবেন। অথবা সার্চ বক্সে অনুসন্ধান করে ও আপনাদের সিলেবাস অবলম্বনে পাঠ্য আর্টিকেল খুঁজে পেতে পারেন। চলুন বাকী অংশ পড়ে নেওয়া যাক।

ঘ উত্তরঃ “উদ্দীপকের মূলভাব ‘মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে আলােচিত প্রকৃত মানবকল্যাণকেই নির্দেশ করে।”- মন্তব্যটি যথার্থ। • মানুষের কল্যাণ সাধনের মধ্যে মানবজীবনের সার্থকতা নিহিত।

অন্যের কল্যাণের কথা বিবেচনা না করে নিজের স্বার্থকেই যদি বড় মনে করা হয় তাহলে সেই জীবনের প্রকৃত অর্থে কোনাে গুরুত্ব নেই। উদ্দীপকের কবিতাংশে কবির পরােপকারী মনােভাব প্রতিফলিত হয়েছে। এ বিষয়টি মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে প্রতিফলিত সত্যিকারের মানবকল্যাণ বিষয়টির সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ। উ

ভয় ক্ষেত্রেই নিঃস্বার্থ পরােপকারের দিকটি ফুটে উঠেছে। আত্মকেন্দ্রিকতা বা ব্যক্তিকেন্দ্রিক স্বার্থচিন্তা মানুষকে সমাজের অন্যান্য মানুষের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। ফলে তার পক্ষে আর মহৎ কাজ করা সম্ভব হয় না। কাজেই সামাজিক জীব হিসেবে মানুষকে মানুষের পাশে এসে দাঁড়াতে হয়।

একে অন্যের সুখ-দুঃখের ভাগী হতে হয়। মানব-কল্যাণ প্রবন্ধে লেখক এই ঐক্যের দিকটির ওপর জোর দিয়েছেন। তাঁর মতে বিভক্তিকরণের মনােভাব নিয়ে কারও কল্যাণ করা যায় না। মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে লেখক মানবকল্যাণ অর্থে আমাদের প্রতিদিনের ব্যবহারিক জীবনের কল্যাণকে বুঝিয়েছেন।

উদ্দীপকের কবিতাংশের কবির ঘর যে ভাঙে তিনি তার ঘর বেঁধে দেন। এই ঘর বেঁধে দেওয়ার মধ্যে ঐ কবির পরােপকারী মনােভাবের পরিচয় স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। মানবকল্যাণ প্রবন্ধ এবং উদ্দীপক উভয় ক্ষেত্রেই মানবকল্যাণের বিষয়টি এক ও অভিন্ন হয়ে ধরা পড়েছে।

এ কারণেই বলা হয়েছে, উদ্দীপকের মূলভাব ‘মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে আলােচিত প্রকৃত মানবকল্যাণকেই নির্দেশ করে। | এম সারকথা : মানবকল্যাণ মানুষের শুভ ও কল্যাণকর চিন্তার প্রতিফলন; এটি জাগতিক মানবধর্ম। উদ্দীপক ও ‘মানব-কল্যাণ’ প্রবন্ধে এ বিষয়টি অভিন্নভাবে প্রতিফলিত হয়েছে।

ধন্যবাদ আপনার অনুসন্ধানের জন্য এবং আমাদের সাইটে ভিজিট করার জন্য। আশাকরি আপনার কাঙ্খিত তথ্য মানব কল্যাণ প্রবন্ধ সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর ২০২২ আমাদের সাইটের মাধ্যমে সহজেই বুঝে নিতে পেরেছেন।

গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর পেতে এখানে চাপুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button