উচ্চ মাধ্যমিক

অপরিচিতা গল্পের মূল বিষয়বস্তু পাঠ পরিচিতি জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আপনি যদি ইতিমধ্যে অপরিচিতা গল্পের মূল বিষয়বস্তু পাঠ পরিচিতি অনুসন্ধান করে থাকেন তবে মূলভাব কি, ব্যাখ্যা, বিশ্লেষণ, সারাংশ, সারমর্ম বা মূল কথা ইত্যাদি সহ বিস্তারি জেনে নিন এই আর্টিকেলের মাধ্যমে। অপরিচিতা গল্পের মূলভাব ব্যাখ্যা সহ আপনাদের সিলেবাসের পাঠ্য সম্বন্ধীয় আরও বিষয়াবলী আমাদের সাইটে জানতে পারবেন।

অপরিচিতা গল্পের বিষয়বস্তু

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলা ছােটগল্পের প্রাণপুরুষ, সমগ্র বাংলা সাহিত্যের, একজন সার্থক স্রষ্টা। তিনি বাংলা সাহিত্যে অসংখ্য কবিতা, উপন্যাস, ছােটগল্প, নাটক, প্রবন্ধ প্রভৃতি সংযােজন করেছেন। অপরিচিতা তাঁর একটি অন্যতম গল্প। এ গল্পে তিনি প্রথমত নায়ক অনুপমের রূপমাধুর্য ও তার বেড়ে ওঠার বর্ণনা দিয়েছেন।

পিতার মৃত্যুর পর অনুপম মায়ের কাছেই মানুষ হয়। পারিবারিক কোনাে বিষয়ে তাকে মাথা ঘামাতে হয়নি। অনুপম ছিল মায়ের অনুগত সন্তান। এ গল্পে সে নিজেকে একজন ভালাে মানুষ ও সৎ পাত্র হিসেবে দাবি করে। তার বন্ধু হরিশ কানপুরে চাকরি করত। ছুটিতে এসে সে-ই প্রথম অনুপমকে বিয়ের কথা বলে।

See also  অপরিচিতা গল্পের নামকরণের সার্থকতা কি তা জেনে নিন

বন্ধুর মুখে বিয়ের কথা শুনে তার মনের বাগিচায় বসন্তের কোকিল ডেকে ওঠে। নিয়মানুসারে বিয়ের কাজ ক্রমান্বয়ে অগ্রসর হতে থাকে। অনুপমের বিয়ের জন্য কন্যা দেখা হয়। কন্যা (কল্যাণী) ছিল বেশ সুন্দরী ও প্রাণচঞলা। আর কন্যার পিতা শম্ভুনাথ সেন ছিলেন স্পষ্টভাষী ও সুপুরুষ।

আপনাকে একটু থামাচ্ছি পাঠক সাহেব। আপনি বর্তমানে আমাদের সাইটে অপরিচিতা গল্পের বিষয়বস্তু সম্পর্কে পড়তেছেন। আমাদের সাইটে আপনাদের পাঠ্য সম্পর্কিত আরও  আর্টিকেল খুঁজে নিতে সার্চ বক্সে অনুসন্ধান করতে পারেন। চলুন বাকী অংশ পড়ে শেষ করে নিন।

পাশাপাশি আরও পড়তে পারেনঃ

প্রতিদান কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

তাহারেই পড়ে মনে কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

আঠারাে বছর বয়স কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

নূরলদীনের কথা মনে পড়ে যায় কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

অপরিচিতা গল্পের মূলভাব ব্যাখ্যা

অন্যদিকে অনুপমের মামা বিয়ের পণের ব্যাপারে কোনাে প্রকার ছাড় দিতে রাজি নন। এখানেই গল্পের কাহিনি জটিলতায় রূপ নেয়। বেশ ঘটা করে বিয়ের কাজ শুরু হলেও এক পর্যায়ে দেনা-পাওনার কারণে সব আনন্দ-আয়ােজন ম্লান হয়ে আসে, বিয়ে ভেঙে যায়।

See also  বায়ান্নর দিনগুলো রচনার মূলভাব ব্যাখ্যা সহ জেনে নিন

এতে অনুপমের কোনাে দোষ না থাকলেও তাকে ব্যক্তিত্বহীনের মতাে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করতে দেখা যায়। এ কারণে সে-ই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কারণ সে তার মনােরাজ্যের প্রেয়সীকে পায় না। এরপর যদিও পুনরায় তাদের বিয়ে হতে পারত বা ট্রেনভ্রমণে ইতিবাচক কিছু ঘটতে পারত, কিন্তু কল্যাণী বিয়ে না করার সিদ্ধান্তে অটল থাকায় তা আর সম্ভব হয়নি। তবু আশা ছাড়েনি অনুপম।

কল্যাণীর প্রতি অনুরাগ তার মনে-বাইরে নিত্য জেগে থাকে। অনুপমের মামার বাড়াবাড়ি রকমের লােভ ও পণপ্রথার কারণে অনুপমের হৃদয় ভেঙে যায়, ব্যক্তিত্বে ধস নামে, তাই অভিমানক্ষুব্ধ জীবন ফুলে-ফলে পরিপূর্ণ হতে পারে না। কেননা কল্যাণী চিরকালের জন্য তার কাছে অপরিচিতা থেকে যায়।

ধন্যবাদ আপনার অনুসন্ধানের জন্য এবং আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করে অপরিচিতা গল্পের মূল বিষয়বস্তু সম্পর্কিত আর্টিকেলটি পড়ার জন্য।

গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর পেতে এখানে চাপুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button